রমজানের অন্যতম প্রধান খাবার খেজুর। ইসলামী নিয়ম অনুসারে, ইফতারের সময় খেজুর খাওয়া সুন্নাত।

বাজারে নানা ধরনের খেজুর দেখে কোন খেজুর সবচেয়ে ভালো,তা বোঝা মুশকিল। মূলত মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার কিছু দেশে নানা ধরনের খেজুর চাষ হয়। সেসব খেজুর খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি সেগুলোর পুষ্টিগুণও অনেক।

বিভিন্ন আকৃতির প্রায় ৬০০ রকমের খেজুর দেখা যায় বিশ্বে। এই ফলে প্রচুর ফাইবার ছাড়াও কয়েক রকমের ভিটামিন ও মিনারেল থাকে যা শরীরের জন্য খুব উপকারি। জেনে নিন বিশ্বের কয়েকটি উন্নতমানের খেজুর সম্পর্কে, যেগুলোর কোনো একটি এই রমজানে হতে পারে আপনার প্রিয় খাবার।

আজওয়া: দেখতে কালো, নরম এই খেজুর খুব পুষ্টি সমৃদ্ধ। খেতেও বেশ ভালো। মূলত সৌদি আরবের মদিনাতে এই খেজুর চাষ হয়। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) এই খেজুর পছন্দ করতেন। এই খেজুর হৃদপিন্ডকে সক্রিয় রেখে হার্ট অ্যাটাক রোধ করে। এতে থাকা ভিটামিন বি ও ম্যাগনেশিয়াম হার্টের জন্য উপকারি। এই খেজুরে ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস থাকে অনেক, তাই এটি হাড় ও দাঁত মজবুত রাখে। এতে গ্লুকোজ, ফ্রুকটোজ, সুক্রোজ থাকে অনেক, তাই শরীরে শক্তি  বাড়ায় এই খেজুর। এতে গ্লিসেমিক ইনডেক্স কম, তাই ডায়াবেটিক রোগীরাও এই খেজুর খেতে পারেন। প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকায় এই খেজুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

মেজুল: বিশ্বের একটি জনপ্রিয় খেজুর বলা যায় মেজুলকে। মূলত মরক্কোতে চাষ হয় এই খেজুর। বর্তমানে আমেরিকাসহ অনেক দেশেই এই খেজুর পাওয়া যায়। বড় আকারের বাদামী রঙয়ের এই খেজুরে ফাইবার, ভিটামিন, মিনারেল আছে অনেক। এটি হৃদরোগ প্রতিরোধ করে, হজমে সহায়ক। মস্তিষ্ক ও হাড়ের জন্য উপকারি। খেতেও সুস্বাদু।

Leave a Reply

Your email address will not be published.