খুলনায় ৩৮৪০ ক্ষুদে মুজিবের কণ্ঠে ৭ মার্চের ভাষণ

 

খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে বসেছিল ক্ষুদে মুজিব সম্মেলন। মুজিব কোর্ট ও শুভ্র পায়জামা-পাঞ্জাবি পরে হাজির হন ৩৮৪০ জন ক্ষুদে মুজিব।

শুক্রবার খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে ১৯২০ জন শিশু, ১৯২০ জন আলেম ও সহস্রাধিক মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ শোনা যায়। এ সময় গভীর আবেগ ও ভাবগম্ভীর আবহের সৃষ্টি হয়।

বিভাগীয় ও শিল্প নগরী খুলনায় বর্ণাঢ্য আয়োজন, বিপুল উপস্থিতি ও দেশপ্রেমে উজ্জীবিত জনতার বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাংলাদেশের মহান স্থপতি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর কাউন্টডাউন অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়।

অনুষ্ঠানে স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে সোনার বাংলা গড়ার শপথ পাঠ করান শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল এমপি। ১৭ জন আলেমের সমন্বয়ে পরিচালিত বিশেষ দোয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ১৫ আগস্টে শহীদ তার পরিবারের সদস্য এবং স্বাধীনতাযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।

দোয়ায় বাংলাদেশের কল্যাণে বঙ্গবন্ধুর অবদান স্মরণের পাশাপাশি দেশ ও জাতির কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস বিবেচনায় নিয়ে খুলনা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও ‘চাইল্ড ইন্টিগ্রিটি ও শিশু বঙ্গবন্ধু ফোরাম’-এর ব্যবস্থাপনায় এ দিনের অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে তোপধ্বনির মাধ্যমে ‘কাউন্টডাউন প্রথম প্রহরে মুজিববর্ষ’ সূচনা, বঙ্গবন্ধুর ওপর ডকুমেন্টারি প্রদর্শন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন।

খুলনার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ‘শিশু বঙ্গবন্ধু ফোরাম’-এর শিক্ষার্থীরা, বিভিন্ন মসজিদ-মাদ্রাসার ইমাম, মুয়াজ্জিন, শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং অন্যান্য ধর্মের অনুসারীরা অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. আক্তারুজ্জামান বাবু, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন।

ফেসবুকে কমেন্ট করুন -আপনার মতামত দিন